শিরোনাম :
গোপালগঞ্জ জার্নলিস্ট ফেডারেশনকে কম্পিউটার উপহার দিলেন জেলা প্রশাসক হাওর এলাকার ভূমি অবক্ষয় মোকাবেলায় টেকসই ভূমি ব্যবস্থাপনা প্রযুক্তি প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত সরিষাবাড়ীতে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে টেন্ডার বহির্ভূত গাছ কাটার অভিযোগ কমলগঞ্জে বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিবসহ ১৪ সদস্যের পদত্যাগ মাগুরার শ্রীপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে বঙ্গবন্ধুর ম্যূরাল উদ্বোধন দুই পক্ষের কর্মসূচি, দিঘলিয়ার সেনহাটিতে ১৪৪ ধারা জারি গোলাপগঞ্জে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেই পুলিশের খাঁচায় মঠবাড়িয়ায় ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে মামলা, গ্রেফতার-১ পাঁচটি প্রযুক্তি ডোমেইনের সমন্বয়ে নতুন উপযোগিতা সৃষ্টির লক্ষ্যে শুরু হয়েছে হুয়াওয়ে কানেক্ট ২০২০ মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এডভোকেট সৈয়দ আফরোজ বখতের মৃত্যুতে আবু জাহির এমপির শোক প্রকাশ


বহিস্কৃত ওসি প্রদীপ সহ ৩০ জনের বিরুদ্ধে নির্যাতিত সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফার মামলা

বেলাল আজাদ,কক্সবাজার প্রতিনিধি :: দেশব্যাপী আলোচিত কক্সবাজারের টেকনাফে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যার ঘটনায় বহিস্কৃত কারাবন্দী টেকনাফ থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ সহ ৩০ জনের বিরুদ্ধে কক্সবাজার আদালতে মামলা দায়ের করেছেন ওসি প্রদীপের হাতে চরম ভাবে নির্যাতিত ও সদ্য কারামুক্ত সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান।

মামলায় পুলিশ ছাড়াও স্থানীয় ৪ ব্যক্তিকেও ‘পুলিশের দালাল’ হিসেবে চিহ্নিত করে আসামী করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) কক্সবাজারের বিজ্ঞ সিনিয়র জুুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৪র্থ (সদর) আমলী আদালতে মামলার ফৌজদারী দরখাস্ত’টি দায়ের করা হলে আদালতের বিচারক সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জনাবা তামান্না ফারাহ মামলাটি আমলে নিয়ে পরবর্তী ধার্য তারিখের মধ্যে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কে নির্দেশ।

 সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান’র মামলার ৩০ জন আসামীরা হলেন- টেকনাফ থানার এসআই মো. কামরুজ্জামান, ইন্সপেক্টর (তদন্ত) এ.বি.এম.এস দোহা, ইন্সপেক্টর রফিকুল ইসলাম খান, কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই প্রদীপ, এসআই মো: সাইফুল করিম, টেকনাফ থানার এসআই মশিউর রহমান, এসআই মনসুর মিয়া, এসআই ছাব্বির আহমেদ, এসআই সুুজিত চন্দ্র দে, এসআই বাবুল, এসআই মো. জামাল উল্লাহ, এসআই মো. নাজির উদ্দিন, এসআই আমির হোসেন, এসআই মিসকাত উদ্দিন, এসআই সনজিত দত্ত, কনস্টেবল নাজমুল হাসান, সাগর দেব, আবদুল্লাহ আল মামুন, রাশেদুল ইসলাম, হেলাল উদ্দিন, মংচিংপ্র চাকমা, আবদুল শুক্কুর, মো. মহিউদ্দিন, সেকান্দর এবং টেকনাফের দক্ষিণ হ্নীলা ফুলেরডেইল এলাকার মৃত আবুল খায়েরের ছেলে মো. জহিরুল ইসলাম, হোয়াইক্যং পশ্চিম সাতঘরিয়া পাড়ার হাজি আবুল কাশেমের ছেলে মফিজ আহমদ, হ্নীলা দরগাহ পাড়ার মৃত তাজর মুল্লুকের ছেলে আবুল কালাম প্রকাশ আলম ও হোয়াইক্যং দক্ষিণ কাঞ্জরপাড়ার মাওলানা সিরাজুল হকের ছেলে নুরুল আমিন।

সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খানের দায়েরকৃত মামলায় টেকনাফের সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ পুলিশ সদস্য ও তাদের দালালদের মাধ্যমে পৃথক ৪টি ঘটনায় তাকে নানাভাবে শারীরিক নির্যাতন, হত্যাচেষ্টা, মিথ্যা মামলা দায়েরসহ নানা অভিযোগ স্পষ্ট ভাবে উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার শুনানীকালে বাদী পক্ষে আইনজীবী ছিলেন- কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এড. আবুল কালাম সিদ্দিকী, সিনিয়র আইনজীবী এড. মো. মোস্তফা, এড. আবদুল মন্নান, এড. ফখরুল ইসলাম গুন্দু, এড. রেজাউল করিম রেজা, এড. এম.এম ইমরুল শরীফসহ ১২/১৪ জন আইনজীবী।

উল্লেখ্য যে, মামলার বাদী সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান কক্সবাজারের স্থানীয় দৈনিক কক্সবাজারবাণী ও জাতীয় অনলাইন জনতারবাণী বিডি ডটকম পত্রিকা দু’টির সম্পাদক ও প্রকাশক।

টেকনাফ থানার বহিস্কৃত সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশের বেপরোয়া বিচার বহির্ভূত হত্যা সহ বিভিন্ন অনিয়মের বিষয়ে সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান ২০১৯ সালের ২৪ জুন ‘টেকনাফে আইন শৃঙ্খলার অবনতি ও টাকা না দিলে ক্রস ফায়ার দেন ওসি প্রদীপ’ শিরোনামে তিনি বস্তুনিষ্ট সংবাদ করেন। এছাড়াও মাদকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় সংবাদ, ক্রস ফায়ারের নামে বিচার বহির্ভুতভাবে মানুষ হত্যার বিষয়ে লিখেন সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ২০১৯ সালের ২১ সেপ্টেম্বর রাতে ঢাকার মিরপুরের বাসা থেকে সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান কে বিনা পরোয়ানায় আটক করে কক্সবাজার এনে কয়েক দিন যাবৎ নির্মম ও নজির বিহীন শারীরিক নির্যাতন করে চাঁদাবাজি, অস্ত্র, মাদকসহ নানা অভিযোগে ৬টি মিথ্যা মামলা দিয়ে আদালত সোপর্দ করে।

এ সব মামলায় বিনা অপরাধে দীর্ঘ ১১ মাস ৫ দিন কারাবাসের পর গত ২৭ আগস্ট তিনি কারামুক্ত হন। তখন থেকে তিনি কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

A House of M.R.Multi-Media Ltd
Design & Development By ThemesBazar.Com