মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় শিক্ষার্থীর উপর হামলা

প্রকাশিত: ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ৩, ২০২২

বর্তমান খবর,ডাসার,প্রতিনিধি : মাদারীপুরের ডাসার উপজেলার বালিগ্রাম ইউনিয়নে মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় মোঃ জুবায়ের আলম শুভ-(২২) নামে এক শিক্ষার্থীর উপর হামলা চালিয়েছে বেশ কয়েকজন বখাটে যুবক।

এ হামলার ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার সকালে ওই শিক্ষার্থীর বাড়িতে হামলাকারীদের বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ করেন জুবায়েরের স্বজনেরা। এদিকে এই ঘটনায় ডাসার থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেছেন ভূক্তভোগী শিক্ষার্থী।

জুবায়ের একই উপজেলার বালিগ্রাম এলাকার সনমান্দী গ্রামের শিক্ষক আব্দুল মতিন হাওলাদারের ছেলে ও খোয়াজপুর টেকেরহাট সৈয়দ আবুল হোসেন কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

এলাকা, পুলিশ ও ভূক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানা গেছে, ডাসার উপজেলার বালিগ্রাম এলাকার সনমান্দী গ্রামের শিক্ষক আব্দুল মতিন হাওলাদারের বসতঘরের পাশের একটি পরিত্যক্ত ভবনের ছাদে বসে দীর্ঘদিন যাবত একই এলাকার আরোজ খান ও জিয়ার খানসহ বেশ কয়েকজন বখাটে মাদক সেবন করে আসছে।

এ মাদক সেবনে বাধা প্রদান করেন শিক্ষক আব্দুল মতিন হাওলাদারের কলেজ পড়ুয়া ছেলে শুভ। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই বখাটেরা মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই শিক্ষার্থীর উপর হামলা চালায়। পরে এ হামলার ঘটনার প্রতিবাদে ওই শিক্ষার্থীর বাড়িতে হামলাকারীদের বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ করেন জুবায়েরের স্বজনেরা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন আরাফাত হাওলাদার, স্বাধীন হাওলাদার, ইয়াসিন মাতুব্বর, নাঈম বেপারী, ইয়ামিন হাওলাদার, হাবিবুল্লাহ, রায়হান, ইসমাইল ও উজ্জল মাতুব্বর প্রমুখ। এদিকে এই হামলার ঘটনায় শিক্ষার্থী শুভ হাওলাদার বাদী হয়ে ডাসার থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেন।

ভূক্তভোগী শিক্ষার্থী মোঃ জুবায়ের আলম শুভ অভিযোগ করে বলেন, আমাদের বাড়ির একটি ভবনের ছাদে আরোজ খান ও জিয়ার খানসহ বেশ কয়েকজন বখাটে কয়েক মাস যাবত মাদক সেবন করে আসছে। আমি তাদের বাধা দিলে তারা আমার উপর হামলা চালিয়েছে। তাই আমি তাদের নামে থানায় একটি ডায়েরি করেছি। এবং ওই বখাটেরা অনেক সময় স্কুলের ছাত্রীদেরকেও ইভটিজিং করে।

সনমান্দী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সৈয়দা ইসরাত ইমাম বলেন, আরোজ খানের নেতৃত্বে বখাটেরা আমাদের স্কুলের সামনে ছাত্রীদের ইভটিজিং করত। পরে তার অভিভাবকদের ডেকে বিচার দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে ডাসার থানার এসআই অখিল রায় বলেন, এই ঘটনায় থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করা হয়েছে। যাহার ডায়েরি নং- ৩৪. তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।